শীর্ষ সংবাদ

জীবনের শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে হলেও প্রধানমন্ত্রীর মান রক্ষা করবো : -রেজাউল করিম

আজ বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার দেয়া উপহার নৌকার প্রতীক নিয়ে চট্টগ্রামে পৌঁছেছেন তিনি। তাঁর এ আগমনকে ঘিরে চট্টগ্রাম শহরজুড়ে যেন উৎসবের আমেজ বয়ে যাচ্ছে। স্টেশনের সামনে সাজানো মঞ্চে উঠে এম রেজাউল করিম চৌধুরী সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেছেন, আপনাদের এ ফুলেল শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন এবং আপনাদের এ ভালোবাসায় সিক্ত ও অশেষ কৃতজ্ঞ। তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা আমার ওপর আস্থা রেখে নৌকার প্রতীক হাতে তুলে দিয়েছেন। জীবনের শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে হলেও তাঁর মর্যাদা রক্ষা করবো। জহুর আহমদ চৌধুরী, এমএ আজিজ, মহিউদ্দীন চৌধুরীর পথ অনুসরণ করবো। চতুর্দিক থেকে হঠাৎ মিছিল এসে জনসমুদ্র হয়ে যায় স্টেশন রোডের পুরো এলাকা। সময় যখন ৩টা ৫মিনিট তখন উপস্থিত নেতাকর্মীরা স্লোগান দিতে থাকেন, রেজাউল ভাইয়ের আগমন, শুভেচ্ছা স্বাগতম। তখন রেজাউল করিম চৌধুরীর বলেছেন, ‘নেতা হতে আসিনি, মানুষের সেবায় জীবন উৎসর্গ করে দেবো। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে আপনাদের ভালোবাসায় আজ সিক্ত। আপনাদের ভালোবাসার কারণেই বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মনোনয়ন দিয়েছেন। বিকেল ৩টায় পুরাতন রেল স্টেশন চত্বরে আয়োজিত সমাবেশে আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী এসব কথা বলেন। তিনি বলেন আমি জয়ী হলে সকলকে সঙ্গে নিয়ে একটি বসবাসযোগ্য, মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত পরিকল্পিত নগর হিসেবে গড়ে তুলতে কাজ করবো। চসিক নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে চট্টগ্রামে আগমন উপলক্ষে এ সমাবেশ আয়োজন করে চট্টগ্রাম নগর, উত্তর জেলা ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ। মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা আমার ওপর আস্থা রেখেছেন। জীবনের শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে হলেও তার মর্যাদা রক্ষা করবো। জহুর আহমদ চৌধুরী, এমএ আজিজ, মহিউদ্দীন চৌধুরীর পথ অনুসরণ করবো। তিনি বলেন, চট্টগ্রামবাসীর প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। নির্বাচনে যদি জয়ী হতে পারি তাহলে মানুষের পাশে থাকবো। চট্টগ্রামে যে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রয়েছে তা আরও এগিয়ে নিতে কাজ করবো। তিনি বলেন, মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী যারা ছিলেন তারা সবাই যোগ্য ছিলেন। কিন্তু নেত্রী আমাকে বেছে নিয়েছেন। আমি তার প্রতিদান দেবো। মহানগর আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরীর পরিচালনায় বক্তব্য দেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমেদ এমপি, মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এমএ সালাম। এ সময় দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, কোষাধ্যক্ষ আবদুচ ছালাম, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আতাউর রহমান, মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক মহিউদ্দিন বাচ্চুসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

চট্টগ্রামে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রয়েছে তা আরও এগিয়ে নিতে কাজ করবো-রেজাউল করিম

বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৩টা ২০ মিনিটে পুরাতন রেল স্টেশন চত্বরে আয়োজিত সমাবেশে আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী এসব কথা বলেন। তিনি বলেন আমি জয়ী হলে সকলকে সঙ্গে নিয়ে একটি বসবাসযোগ্য, মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত পরিকল্পিত নগর হিসেবে গড়ে তুলতে কাজ করবো। চসিক নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে চট্টগ্রামে আগমন উপলক্ষে এ সমাবেশ আয়োজন করে চট্টগ্রাম নগর, উত্তর জেলা ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ। মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা আমার ওপর আস্থা রেখেছেন। জীবনের শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে হলেও তার মর্যাদা রক্ষা করবো। জহুর আহমদ চৌধুরী, এমএ আজিজ, মহিউদ্দীন চৌধুরীর পথ অনুসরণ করবো। তিনি বলেন, চট্টগ্রামবাসীর প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। নির্বাচনে যদি জয়ী হতে পারি তাহলে মানুষের পাশে থাকবো। চট্টগ্রামে যে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রয়েছে তা আরও এগিয়ে নিতে কাজ করবো। তিনি বলেন, মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী যারা ছিলেন তারা সবাই যোগ্য ছিলেন। কিন্তু নেত্রী আমাকে বেছে নিয়েছেন। আমি তার প্রতিদান দেবো। মহানগর আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরীর পরিচালনায় বক্তব্য দেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমেদ এমপি, মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এমএ সালাম। এ সময় দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, কোষাধ্যক্ষ আবদুচ ছালাম, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আতাউর রহমান, মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক মহিউদ্দিন বাচ্চুসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

আজ ঢাকা আসছেন মোদি

আজ বুধবার (১৯ফেব্রুয়ারি)আগামী ১৭ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ঢাকা আসছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে থাকবেন তিনি। ঢাকা সফরের মধ্য দিয়ে নরেন্দ্র মোদির সফরের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হলো। দুদিনে বাংলাদেশ সরকারের দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন অ্যাডভান্স টিমের সদস্যরা। ঢাকায় অবস্থানকালে মোদি যে হোটেলে থাকবেন ও যেসব স্থানে যাবেন, সেগুলো সরেজমিন ঘুরে দেখেছেন তারা। সংশ্লিষ্টরা জানান,, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর আয়োজন ছাড়াও দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের ক্ষেত্রেও ভারতের প্রধানমন্ত্রীর আগামীর সফরটি তাত্পর্যপূর্ণ। ঢাকা-দিল্লি সম্পর্কের শীতলতা প্রশ্নে কূটনৈতিক ও রাজনৈতিক অঙ্গনে যে বিতর্ক চলছে, সেটির অবসানেও সফরটির সফল বাস্তবায়ন গুরুত্বপূর্ণ। মোদির ঢাকা এ সফর হবে বাংলাদেশের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কোন্নয়নে দিল্লির আগ্রহের বহিঃপ্রকাশ। এমন একসময়ে মোদি ঢাকা সফরে যাচ্ছেন, যার কিছুদিন আগেই ভারতে বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধন আইন (সিএএ) পাস হয়েছে। ওই আইনে ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বরের আগে ভারতে গিয়ে বসবাস করা সব অমুসলিমকে দেশটির নাগরিকত্ব দেয়ার অঙ্গীকার করা হয়েছে। এতে ভারতের বহু মুসলিম দেশহীন হয়ে পড়তে পারেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এ আইনকে কেন্দ্র করে ঢাকা-নয়াদিল্লির সম্পর্কে অস্বস্তি তৈরি হয়েছে। গত ১১ ডিসেম্বর ভারতের পার্লামেন্টে সিএএ পাস হওয়ার প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশের তিনজন মন্ত্রী বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে ভারত সফর বাতিল করেছেন।

আজ তাপস পালের শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে

ওমর ফারুক খান নিয়ন ডেক্স প্রতিবেদনঃআজ বুধবার (১৯ফেব্রুয়ারি)রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় ভারতীয় বাংলা সিনেমার দাপুটে অভিনেতা তাপস পালের শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে।আজ বিকালে রবীন্দ্র সদন চত্বর থেকে শুরু হবে শেষযাত্রা। যা শেষ হবে কেওড়াতলা মহাশ্মশানে। তবে এর আগে আজ ভক্ত-অনুরাগীদের শেষ শ্রদ্ধা জানানোর জন্য তার মরদেহ রাখা হয়েছে রবীন্দ্রসদন চত্বরে। সেখানে তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে উপস্থিত রয়েছেন টালিউডের শিল্পী, কলাকুশলী ও রাজনৈতিক নেতাকর্মীরা। সেই সঙ্গে রয়েছেন অনেক বিশিষ্ট ব্যক্তিরাও। উল্লেখ্য, ‘দাদার কীর্তি’ সিনেমার মাধ্যমে অভিনয় জগতে পা রাখেন তাপস। এরপর ‘গুরুদক্ষিণা’, ‘সাহেব’, ‘ভালোবাসা ভালোবাসা’সহ বেশ কিছু সিনেমা তাকে জনপ্রিয়তার শীর্ষে পৌঁছে দেয়। ‘সাহেব’ সিনেমার জন্য তিনি ফিল্ম ফেয়ার পুরস্কার লাভ করেন। শুধু কোলকাতাতেই নয়, অভিনেতা হিসেবে বাংলাদেশেও অধিক জনপ্রিয় তিনি। অভিনেতা তাপস পাল রাজনীতির সঙ্গেও যুক্ত ছিলেন। ২০০৯ সালে তৃণমূল কংগ্রেসের মনোনয়ন পেয়ে কৃষ্ণনগর লোকসভা কেন্দ্রের সংসদ সদস্য হয়েছিলেন। গতকাল মঙ্গলবার ভোরে ভারতের মুম্বাইয়ের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ৬১ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তাপস পাল। তার আগে দীর্ঘদিন তিনি স্নায়ু এবং রক্তচাপ সমস্যায় ভুগছিলেন।

শহীদ মিনারে থাকবে চার স্তরের নিরাপত্তা: ডিএমপি

আজ বুধবার (১৯ফেব্রুয়ারি) আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২১ ফেব্রুয়ারি মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও এর আশপাশের এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে বলে জানান ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার (ডিএমপি) মো. শফিকুল ইসলাম । শহীদ মিনারে জঙ্গি হামলা বা নাশকতার কোনো আশঙ্কা নেই। এ নিয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো হুমকিও নেই। আজ জাতীয় শহীদ মিনারে নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ শেষে সম্মেলনে ডিএমপি কমিশনার মো. শফিকুল ইসলাম এ সব কথা বলেন তিনি। ডিএমপি জানান,শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানাতে আসা নাগরিকদের আর্চওয়ের মধ্যদিয়ে প্রবেশ করানো হবে। তল্লাশি ছাড়া কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। এছাড়া সাদা পোশাকে পুলিশ, ডিবি পুলিশ মোতায়েন থাকবে। প্রস্তুত থাকবে সোয়াত, সিটিটিসির স্পেশাল অ্যাকশন গ্রুপ ও ডগ স্কোয়াড টিম।সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সার্বক্ষণিক মনিটরিং করবে ডিএমপির সাইবার সিকিউরিটি বিভাগ। শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘শহীদ মিনার এলাকায় ব্যারিকেড দেওয়া হয়েছে। ব্যারিকেডের ভেতরের প্রতি ইঞ্চি জায়গায় সিসি ক্যামেরার আওতায় থাকবে। ব্যারিকেডের ভেতরে প্রবেশের সময় সবাইকে তল্লাশি করা হবে। তল্লাশি ছাড়া কাউকে ব্যারিকেডের ভেতরে ঢুকতে দেওয়া হবে না।’ এ ছাড়া নিয়মিত টিমের পাশাপাশি সোয়াট, সাদা পোশাকে ডিবি, পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চ ও মোবাইল টিম থাকবে। যেন যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবিলা করা যায়। প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির আগমন উপলক্ষে নেওয়া হয়েছে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে সবাইকে ডিএমপির নির্দেশিত ম্যাপ ফলো করতে সর্বসাধারণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার।

চসিক মেয়র পদে মনোনয়ন পাওয়া রেজাউল করিমকে সংবর্ধনায় ব্যাপক প্রস্তুতি

আজ বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারি)আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার পর চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম. রেজাউল করিম চৌধুরী আজ দুপুরে ঢাকা থেকে ট্রেন যোগে চট্টগ্রামে আসছেন।চট্টগ্রাম পুরাতন রেল স্টেশনে তাকে বরণ এবং সংবর্ধিত করার লক্ষ্যে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। এ উপলক্ষে আজ বেলা ১২টার মধ্যে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সকল কর্মকর্তা, সদস্যবৃন্দ, থানা, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সহ সহযোগী সংগঠনের সকল স্তরের নেতাকর্মীদের ভিড় সকাল থেকেই নেয়া হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা ।

ধর্ষকদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী এবং সংসদ নেতা শেখ হাসিনা জানান,মাদক এবং জঙ্গিবাদের মত ধর্ষকদের বিরুদ্ধেও কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।তিনি বলেন, ‘মানুষ নামের কিছু পশু ছোট শিশু থেকে শুরু করে মেয়েদের বিভিন্ন জায়গায় ধর্ষণ করছে। এদের বিরুদ্ধে আমরা কঠোর ব্যবস্থা নিচ্ছি।’ মঙ্গলবার ধানমন্ত্রী এবং সংসদ নেতা শেখ হাসিনা একাদশ জাতীয় সংসদের ৬ষ্ঠ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনিত ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর আলোচনা এবং অধিবেশনের সমাপনী ভাষণে একথা বলেন। ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এ সময় স্পিকারের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি জানান,সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ এবং মাদকের বিরুদ্ধে যেমন ব্যবস্থা নিয়েছি তেমনি এখন আমরা সন্ত্রাস,জঙ্গিবাদ, মাদক এবং ধর্ষকের বিরুদ্ধে একইভাবে জিরো টলারেন্স ঘোষণা দিচ্ছি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশবাসীকে আমি আহবান করবো- এই ধরনের ঘটনা (ধর্ষণ) যারা ঘটাচ্ছে তাদের ধরতে সকলেই যেন আমাদের সহযোগিতা করেন। কারণ তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা আমরা আইনগতভাবেই নেব এবং এ বিষয়ে আমরা যথেষ্ট সচেতন রয়েছি।করোনা ভাইরাস’ প্রতিরোধ, ‘ডেঙ্গু’ প্রসংগ, আসন্ন রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখা এবং দেশের ব্যাংকে টাকা নেই বলে বিরোধীদলীয় নেতার বক্তব্যের প্রেক্ষিতে দেশের বর্তমান রিজার্ভসহ আর্থ-সামাজিক অবস্থার উত্তরণের চিত্র তাঁর ভাষণে তুলে ধরেন।এটা যখন চীনে দেখা দেয় তখনই তাঁর সরকার এ বিষয়ে প্রতিরোধমূলক পদক্ষেপ নিয়েছে এবং অন এরাইভাল ভিসা বন্ধ করে দিয়েছে। তাঁর সরকারের বিমানবন্দরে প্রতিরোধমূলক সতর্কাবস্থা গ্রহণের প্রসংগ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘চীন বা যেসব দেশে এই ভাইরাস দেখা গিয়েছে সেসব দেশ থেকে কেউ আসলে তার সঠিকভাবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে আমরা নিশ্চিত হচ্ছি এই ভাইরাস নিয়ে কেউ ঢুকছে কিনা। কাউকে এতটুকু সন্দেহ হলে হাসপাতালে নিয়ে তাকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে কোয়ারান্টাইনে রেখে তারপর আমরা ছাড়ছি।’ তিনি বলেন, ‘এটা যেন বাংলাদেশে বিস্তার লাভ করতে না পারে সেজন্য যথাযথ ব্যবস্থা আমরা নিয়েছি।’ অতীতে দেশে ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়ার প্রসংগ টেনে প্রধানমন্ত্রী সবাইকে বাড়ি-ঘর এবং চারপাশ পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রেখে এই রোগ সৃষ্টিকারি এডিস মশার বংশ বিস্তার রোধ করার বিষয়েও সবাইকে পুনরায় সতর্ক করেন। তিনি বলেন, ‘ডেঙ্গু নিয়ে একটা সমসা সৃষ্টি হয়েছিল। আবারও মশার উপদ্রব বাড়ার লক্ষণ দেখা যাচ্ছে। সেক্ষেত্রে আমি দেশবাসীকে বলবো নিজেদেরকেও একটু সচেতন থাকতে হবে এবং বাড়ি-ঘর পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে, যেন মশা না জন্মাতে পারে সে ব্যাপারে সবাইকে সচেতন থাকতে হবে।’ প্রধানমন্ত্রী তাঁর ভাষণে আসন্ন রমজান মাসে বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সমাগ্রীর সরবরাহকে সুষম রাখার মাধ্যমে দ্রব্যমূল্যকে জনগণের নাগালের মধ্যে রাখার জন্যও সংশ্লিষ্ট মহলকে নির্দেশনা প্রদান করেন।

আজ কলেরার টিকাদান কর্মসূচি শুরু

আজ বুধবার(১৯ ফেব্রুয়ারি) ঢাকায় শুরু হচ্ছে টিকাদান কর্মসূচি। দেশে ডায়রিয়া ও কলেরার প্রকোপ কমানোর লক্ষ্যে ছয়দিনব্যাপী এই টিকাদান কর্মসূচি চলবে ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত । ঢাকা সিটি করপোরেশনের মোহাম্মদপুর, আদাবর দারুস সালাম, কামরাঙ্গীরচর, হাজারীবাগ ও লালবাগ এলাকার ১৬টি ওয়ার্ডে (৯, ১০, ১৪, ২২-২৫, ২৯-৩৪, ৫৫-৫৭) এই টিকাদান কার্যক্রম পরিচালিত হবে। সিটি করপোরেশনের স্থায়ী টিকাদান কেন্দ্রসহ ৩৬০ টিকাদান কেন্দ্রের মাধ্যমে আজ সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত এই টিকা দেয়া হবে। তবে কর্মজীবীদের সুবিধার্থে কিছু কিছু টিকাদান কেন্দ্র সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত খোলা রাখা হবে। এক বছর এবং তদূর্ধ্ব বয়সি মানুষের জন্য এই টিকাদান কর্মসূচি। প্রাথমিক পর্যায়ে ঢাকার ৫টি এলাকায় শুরু হলেও পর্যায়ক্রমে ঢাকার কলেরা প্রবণ অন্যান্য এলাকা এবং সারা বাংলাদেশের কলেরা প্রবণ এলাকাতেও এই টিকাদান কর্মসূচি চলবে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্র শাখার ডিরেক্টর ও সিডিসি’র লাইন ডিরেক্টর অধ্যাপক ডা. শাহনীলা ফেরদৌস লিখিত বক্তব্য তুলে ধরেন। , বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার ২০৩০ সালের মধ্যে কলেরা নির্মূলের দিক-নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখা বাংলাদেশের জন্য কলেরা কন্ট্রোল প্লান ২০১৯-২০৩০ গ্রহণ করে, যেখানে পানি ও পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়নের পাশাপাশি কলেরা টিকাদানকে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে। প্রাথমিক পদক্ষেপ হিসেবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গ্লোবাল টাক্সফোর্স অন কলেরা কন্ট্রোল (জিটিএফসিসি)-এর মাধ্যমে ইউনিসেফের সহায়তায় চব্বিশ লাখ মুখে খাওয়ার কলেরা টিকা সংগ্রহ করা হয়েছে, যা একমাস অন্তর অন্তর ২টি ডোজের মাধ্যমে একবছর থেকে তদূর্ধ্ব বয়সীদেরকে প্রদান করা হবে। লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, বাংলাদেশের সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি এবং ঢাকা সিটি কর্পোরেশন (উত্তর ও দক্ষিণ)-এর সহায়তায় আইসিডিডিআরবি এই টিকাদান কার্যক্রম পরিচালনা করবে। দক্ষিণ কোরিয়ার ইউবায়োলোজি কোম্পানি লিমিটেডের তৈরি ইউভিকল প্লাস নামের মুখে খাওয়ার এই কলেরা টিকা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদনপ্রাপ্ত ও নিরাপদ।

আজ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়া চট্রগ্রামে রেজাউল করিমকে সংবর্ধনা

আজ বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারি)আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার পর চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম. রেজাউল করিম চৌধুরী আজ দুপুরে ঢাকা থেকে ট্রেন যোগে চট্টগ্রামে আসছেন।চট্টগ্রাম পুরাতন রেল স্টেশনে তাকে বরণ এবং সংবর্ধিত করার লক্ষ্যে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। এ উপলক্ষে আজ বেলা ১২টার মধ্যে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সকল কর্মকর্তা, সদস্যবৃন্দ, থানা, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সহ সহযোগী সংগঠনের সকল স্তরের নেতাকর্মীদের যথাসময়ে মিছিল সহকারে উপস্থিত থাকার জন্য চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহ্বান জানান। প্রস্তুতির ব্যাপারে সিটি মেয়র জানান, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রাপ্ত এম.রেজাউল করিম চৌধুরীকে বিজয়ী করতে আমার যতটুকু সমর্থ এবং সাধ্য আছে তার শতভাগ উজার করে দিয়ে বিজয়ী করে আনতে চট্টগ্রাম বাসীকে সাথে নিয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে বিজয়ী করে আনবো ইনশাল্লাহ। প্রধানমন্ত্রী রেজাউল ভাইকে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন দিয়েছে তাকে বিজয়ী করে আনা আমাদের সকলের দায়িত্ব। সাবেক মন্ত্রী জহুর আহমেদ চৌধুরীর বাসভবনে মাহতাব উদ্দীন চৌধুরীর সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি নঈম উদ্দীন চৌধুরী, এড. সুনীল কুমার সরকার, এড. ইব্রাহীম হোসেন চৌধুরী বাবুল, আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য নোমান আল মাহমুদ, শফিক আদনান, আলহাজ্ব শফিকুল ইসলাম ফারুক, হাসান মোহাম্মদ শমশের, এড. শেখ ইফতেখার সাইমুন চৌধুরী, চন্দন ধর, মশিউর রহমান চৌধুরী, আহমেদুর রহমান সিদ্দিকী, দেবাশীষ গুহ বুলবুল, জালাল উদ্দীন ইকবাল, দিদারুল আলম চৌধুরী, আবদুল আহাদ, ডা: ফয়সাল ইকবাল চৌধুরী, মো: শহীদুল আলম, জহর লাল হাজারী প্রমুখ।

দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তার খোঁজে বন্দরে দুদক

ঘুষের বিনিময়ে ঠিকাদারদের আগাম তথ্য ও কাজ দেন বন্দরের কয়েকজন প্রকৌশলী। এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার বন্দর ভবনে অভিযান চালিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) এনফোর্সমেন্ট টিম। অভিযানে বন্দরের ঠিকাদার-সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন কাজের বিষয়ে খোঁজখবর নেয়া হয়। দুদকের সহকারী পরিচালক জাফর আহমদের নেতৃত্বে এ অভিযান চালানো হয়। দুদক সূত্র বলছে, বন্দরের কিছু অসৎ ও দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তার খোঁজে অভিযান চালানো হয়। সূত্রে জানান, বন্দরের কয়েকজন ঠিকাদার ও বন্দর সংশ্লিষ্ট কয়েকটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কর্ণধারের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় দুদক। দুদক প্রধান কার্যালয়ের অনুমোদন সাপেক্ষে দুদক চট্টগ্রাম সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১ অভিযোগটির অনুসন্ধান শুরু করে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দুদক প্রধান কার্যালয়ের এক কর্মকর্তা জানান, অভিযোগটিতে বন্দরের উপ-সংরক্ষক (ডেপুটি কনজারভেটর) ক্যাপ্টেন ফরিদুল আলম, মেইন ওয়ার্কশপের নির্বাহী প্রকৌশলী আসিফ মাহমুদ, নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ মহিউদ্দিনসহ বেশ কয়েকজন ঠিকাদারের নাম রয়েছে। অভিযোগে উল্লেখ রয়েছে, টাকার বিনিময়ে ঠিকাদারদের অগ্রিম কাজ দিয়ে দিতেন। বন্দরের মেইন ওয়ার্কশপের নির্বাহী প্রকৌশলী আসিফ মাহমুদ বলেন,আমাদের বিরুদ্ধে দুদকে একটি অভিযোগের বিষয়ে শুনেছি। এর আগে যিনি অভিযোগ দিয়েছেন তিনি অভিযোগের কপি আমাদের কাছেও পাঠিয়েছিলেন। দুদককে দেওয়া ওই অভিযোগে যার স্বাক্ষর ব্যবহার করা হয়েছে সেটি স্ক্যান করা। তিনি বলেন, ক্যাপ্টেন আহসানের নাম ব্যবহার করে অভিযোগটি দেয়া হয়েছে। তবে তিনি অভিযোগটি দেননি বলে আমাদের কাছে লিখিত ভাবে জানান। বন্দরে এখন সব টেন্ডার ইজিপিতে হয়। আমরা পিপিআর অনুসরণ করে টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করি। আমাদের বিরুদ্ধে দুদকে কোনো অভিযোগ হয়ে থাকলেও তা সত্য নয়। তিনি বলেন, দুদক আমাদের ডাকেনি। তারা হয়তো বন্দর ভবনে এসেছিল। তারা (দুদক) নিশ্চয়ই আগে অভিযোগের সত্যতা দেখবে। এ বিষয়ে ডেপুটি কনজারভেটর ক্যাপ্টেন ফরিদুল আলম আজাদীকে বলেন, তারা ভুয়া কোম্পানির নামে অভিযোগটি দিয়েছেন। কোম্পানির প্রকৃত মালিক আমাদের জানিয়েছেন তাঁর কোম্পানির নাম ব্যবহার করে অভিযোগটি দিয়েছেন। দুদকের একজন পরিদর্শক আমার সাথে কথা বলেছেন। তিনিও এটি উড়োচিঠি বলেছেন। এদিকে দুদকের সহকারী পরিচালক জাফর আহমদ চট্টগ্রাম বন্দরে অভিযানের কথা স্বীকার করলেও কোনো বক্তব্য দিতে রাজি হননি। গত ১২ নভেম্বর বন্দরের শহীদ মুন্সী ফজলুর রহমান মিলনায়তনে চট্টগ্রাম বন্দরের সেবা নিয়ে গণশুনানি করে দুদক। এর আগে ইক্যুইপমেন্ট অপারেশন সেক্টরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নানা অনিয়ম, বন্দরে ১-৪টি গেটে পণ্য বহনের ট্রাক থেকে ঘুষ নেওয়া, মেরিন সাইডের অনিয়ম ও দুর্নীতি, কন্টেনার হ্যান্ডলিংয়ের সময় হয়রানি, জেটিতে ঘুষ নেওয়ার বিষয়ে প্রায় দেড় শতাধিক অভিযোগ জমা পড়ে দুদকে। এর মধ্যে ৫২টি অভিযোগ শুনানিতে উত্থাপন করা হয়। তবে অভিযোগকারীদের ৩৭ জন শুনানিতে উপস্থিত ছিলেন না। গণশুনানিতে এক সেবাগ্রহীতা অভিযোগ করেন, বন্দর থেকে পণ্য খালাস নেয়ার সময় বিভিন্ন যন্ত্রের চালকদের বকশিশ না দিলে তারা সময়ক্ষেপণ করেন। শিপিং এজেন্ট এসোসিয়েশনের এক নেতা অভিযোগ করেন, জাহাজ ভিড়ানোর ক্ষেত্রে পাইলটদের সুবিধা দিতে হয়। আবার শেষ মুহূর্তে এঙপোর্ট (রপ্তানি) কন্টেনার জাহাজে তোলার জন্য বিশেষ অনুমতি নিতে মাঠপর্যায়ে টাকা পয়সা দিতে হয়।

লাইভ টিভি

ওয়ার্ড পরিক্রমা

আবু তাহের সর্দারের ১ম মৃত্যুবার্ষিকী আজ বিশিষ্ট বিদ্যুৎসাহী সমাজকর্মী, স্কাউট আন্দোলন এর কর্ণধার ও আলোর কণ্ঠের প্রতিষ্ঠাতা ও বসুন্ধরা শিশু কিশোর সংগঠন এর উপদেষ্টা আবু তাহের সর্দারের ১ম মৃত্যুবার্ষিকী আজ বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা, প্রিয় স্যারের প্রতি আবু তাহের সর্দার স্মরণ সভা কমিটির উদ্যোগে এক স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। কবি ও সাংবাদিক কামরুল হাসান বাদল, বলেন আবু তাহের সর্দার সৎকর্মের মাধ্যমে চিরকাল স্বরণীয় হয়ে থাকবেন। জন্মিলে মরিতে হবে এটি চিরন্তন সত্য। তবুও মানুষ তাঁর সৎকর্মের মাধ্যমে চিরকাল স্বরণীয় হয়ে থাকতে পারে। সেজন্য যাঁরা কীর্তিমান তাঁরা তাঁদের সেবামুলক কাজের মাধ্যমে মানবসমাজে বেঁচে থাকেন বহু যুগ যুগ ধরে। তিনি বলেন, এ নশ্বর পৃথিবীতে সবই ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়। অর্থাৎ, কোনো মানুষই পৃথিবীতে চিরকাল বেঁচে থাকতে পারে না। সেজন্য দেশ ও মানবকল্যাণে নিঃস্বার্থভাবে কাজ করে যাওয়ার মধ্য দিয়েই আবু তাহের সর্দার অমর হয়ে থাকবেন এ রাষ্ট্র সমাজে। এ জনসমাগম স্মরণ সভা থেকে তা বুঝ যায় তিনি কতবড় ত্যাগী মানুষ ছিলেন। তিনি দীর্ঘ ৬৩ বছর এ রাষ্ট্র সমাজের জন্য শ্রম দিয়েছেন। অসাম্প্রদায়িক চেতনার মুক্ত মনের বিস্ময় প্রতিভা মানুষ ছিলেন আবু তাহের সর্দার। বক্তরা বলেন, মানুষের দুঃখ-দুর্দশাকে লাঘব করতে আবু তাহের সর্দারের প্রচেষ্টা অতুলনীয়; সমাজের আলোক বর্তিকা হয়ে তিনি সমুজ্জ্বল। আবু তাহের সর্দারের কর্মজীবন থেকে শিক্ষা নিয়ে সমাজ বিনির্মানে তরুনদের এগিয়ে আসার শপথ নিতে হবে। অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন আবুল হাসেম, বখতিয়ার উদ্দীন সহ মরহুমের শুভানুধ্যায়ীরা।

খেলা

বিশ্বকাপজয়ী বীরদের দেশের মাটিতে ' আনুষ্ঠানিকভাবে বরণ প্রতীক্ষার প্রহর শেষে বাংলার স্বপ্ন সারথিরা দেশে ফিরেছেন। বুধবার (১২ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৫টার কিছু আগে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপজয়ী দলটিকে বহনকারী এমিরেটস এয়ারলাইন্সের বিমানটি হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান। বিশ্বকাপজয়ী যুবাদের আনুষ্ঠানিকভাবে বরণ করে নেন বিসিবি সভাপতি ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী। বিমানবন্দর থেকে বীর ক্রিকেটারদের ক্রিকেট বোর্ডে নেয়া হবে বিশেষ বাসে। ইয়াং টাইগারদের জন্য সকাল থেকে বিমানবন্দরে অপেক্ষায় রয়েছেন সমর্থকরা। ইতিহাস সৃষ্টিকারীদের নিয়ে মাতামাতি হবে এটাই স্বাভাবিক। হয়েছেও তাই। সকাল থেকেই সাজ সাজ রব ছিলো বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডে। যেন উৎসবের শহর। এ যাত্রায় রং ছড়িয়েছেন সমর্থকরা। দেশের ক্রিকেটকে যারা নিয়ে গেছেন গৌরবের শীর্ষে তাদের ছুঁয়ে দেখতে ভক্তদের আকুতি সীমাহীন। সকাল থেকেই তাই লাল সবুজের জার্সিতে বিসিবিতে জড়ো হতে থাকেন সমর্থকরা। শুরুতে ওয়াটার স্যালুটের কথা থাকলেও, আপাতত তা হচ্ছে না। বিমানবন্দরে কেক কাটার পর্ব শেষে তারা পাবেন ফুলেল সংবর্ধনা। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান উপস্থিত থেকে শুরু করবেন আনুষ্ঠানিকতা। ছাদ খোলা বাস তাদের নিয়ে যাবে মিরপুরে হোম অফ ক্রিকেটে। ইয়াং টাইগারদের এমন অর্জনে শিগগিরই প্রধানমত্রীর পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ হাসান রাসেল।

সর্বশেষ সংবাদ