গভীর সমুদ্র বন্দর সময় সাপেক্ষ বলে পায়রা বন্দরকে আগে নিয়ে আসা হয়েছে : নৌমন্ত্রী শাজাহান

পোস্ট করা হয়েছে 03/09/2015-11:30am:    বিশেষ প্রতিবেদনঃ
নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান বলেছেন, মহেশখালীতে গভীর সমুদ্র বন্দর প্রকল্প আমরা বাতিল করিনি। এ প্রকল্পে ৪০/৪৫ হাজার কোটি টাকার প্রয়োজন হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এ প্রকল্প বাস্তবায়নে চেষ্টা করে যাচ্ছেন। এটা সময় সাপেক্ষ বলে পায়রা বন্দরকে আগে নিয়ে আসা হয়েছে। সবই দেশের উন্নয়নের জন্য। ‘চট্টগ্রাম বন্দর এখন মাফিয়া সিন্ডিকেটের হাতে যারা কোকেন আমদানির ঘটনাও ঘটিয়ে থাকতে পারে’ সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর সম্প্রতি করা এ ধরনের উক্তির জবাবে মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, উনি কি বলেছেন শুনিনি। তবে কোকেন আমদানির মূলহোতারা ইতোমধ্যে চিহ্নিত হয়েছে পুলিশি তদন্তে। তিনি বলেন, চট্টগ্রামের উন্নয়ন তথা দেশের উন্নয়নে কাউকে বাধা হয়ে না দাঁড়ানোর অনুরোধ জানাই।
গতকাল বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃক নির্মিত শহীদ প্রকৌশলী শামসুজ্জামান স্টেডিয়াম সংলগ্ন কাস্টমস অকশন শেড উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। মন্ত্রী খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে বলেন, খালেদা জিয়ার চোখে ছানি পড়েছে। এ কারণে তিনি বর্তমান সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রম চোখে দেখেন না। অথচ আজকে উদ্বোধন করা এ অকশন শেড কি উন্নয়নের চিহ্ন বহন করে না? বয়স হলে মানুষের চোখে ছানি পড়ে। খালেদার চোখেও ছানি পড়েছে। তাই তিনি সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রম দেখছেন না। তিনি দেখেন শুধু ষড়যন্ত্র আর জঙ্গিবাদ। বিএনপিতে যারা আছে তারা মিথ্যাচার করছে অভিযোগ করে নৌ মন্ত্রী বলেন, যে দলের জন্ম ষড়যন্ত্র আর মিথ্যাচার দিয়ে, সে দলের কাছে ভালো কিছু আশা করা যায় না, গণতন্ত্র আশা করা যায় না। বিএনপি করতে হলে আগে মিথ্যা কথা বলার ট্রেনিং নিতে হবে। না হলে বিএনপি করা যাবে না।নৌ মন্ত্রী শাহজাহান খান বলেন, যারা আন্দোলনের নামে গণপরিবহনে মানুষকে পুড়িয়ে মেরেছে, সে হত্যার বদলা নেওয়া হবে। আমার ভাইয়ের রক্তের বদলা আমরা নেবোই। বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রতি প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, খুনের হুকুমদাতার বিচার যদি হয়, তাহলে (খালেদা জিয়া) আপনার বিচার হবে না কেন? পেট্রোল বোমা দিয়ে পুড়িয়ে মানুষ হত্যাকারীদের বিচারের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি স্পেশাল ট্রাইবুন্যাল গঠনের দাবি জানান নৌ মন্ত্রী। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য এম এ লতিফ এমপি বলেন, বাংলাদেশে অনেক নদী আছে কিন্তু কর্ণফুলী দ্বিতীয়টি নেই। দেশের উন্নয়নের জন্য এটাকে রক্ষা করতে হবে। দেশকে এগিয়ে নিতে হলে চট্টগ্রাম বন্দরের উন্নয়ন করতে হবে। তিনি বলেন, গ্রীণ হাউস ইফেক্টের কারণে নগরীতে জলোচ্ছ্বাস হচ্ছে। বন্দরের টার্মিনালের স্থানে স্মার্ট সিটি হওয়া নিন্দনীয়। চট্টগ্রাম বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল নিজাম উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, নৌ মন্ত্রণালয়ের সচিব শফিক আলম মেহেদী ও চট্টগ্রাম কাস্টমস কমিশনার হোসেন আহমেদ।

সর্বশেষ সংবাদ