রফতানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হচ্ছে না

পোস্ট করা হয়েছে 09/03/2015-11:23am:    নিজস্ব প্রতিবেদক : রফতানি আয়ের প্রধান খাত পোশাক খাতে আশানুরুপ হারে রফতানি না হওয়ায় সার্বিক রফতানি লক্ষ্যমাত্রাও পূরণ হচ্ছে না। চলতি অর্থবছরের (২০১৪-১৫) প্রথম আট মাসে লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় চার দশমিক ৫৬ শতাংশ কম রফতানি হয়েছে। অবশ্য এসময়ে আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় দুই দশমিক ৫৬ শতাংশ বেশি রফতানি হয়েছে। রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) প্রকাশিত হালনাগাদ পরিসংখ্যানে এমন তথ্য দেখা গেছে। ইপিবির প্রতিবেদনে দেখা গেছে, চলতি অর্থবছরের জুলাই থেকে ফেব্রুয়ারি সময়ে বাংলাদেশ থেকে দুই হাজার ৩১ কোটি ১৭ লাখ মার্কিন ডলারের পণ্য রফতানি হয়েছে। গত অর্থবছরের একই সময়ে রফতানি হয়েছিল এক হাজার ৯৮২ কোটি ৯০ লাখ মার্কিন ডলার। সে হিসাবে রফতানিতে প্রবৃদ্ধি হয়েছে দুই দশমিক ৪৩ শতাংশ। চলতি বছরের প্রথম আট মাসের জন্য রফতানি লক্ষ্যমাত্রা ছিল দুই হাজার ১২৮ কোটি ১২ লাখ ডলার। অর্থাৎ লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় রফতানি চার দশমিক ৫৬ শতাংশ পিছিয়ে পড়েছে। এদিকে একক মাস হিসাবে ফেব্রুয়ারিতে অর্থবছরের একইমাসের তুলনায় রফতানি প্রবৃদ্ধি ইতিবাচক হলেও অর্জিত হয়নি লক্ষ্যমাত্রা। এ মাসে আগের বছরের একই মাসের তুলনায় পাঁচ দশমিক ১৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে। আর ফেব্রুয়ারিতে ৭০ কোটি ২৪ লাখ ডলার লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে রফতানি হয়েছে ২৫১ কোটি ৪২ লাখ ডলারের পণ্য। যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে সাত দশমিক ০৩ শতাংশ কম। পোশাক শিল্প রফতানিকারকরা বলছেন, বর্তমান বাস্তব পরিস্থিতির কারণেই রফতানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন হচ্ছে না। ফলে বছর শেষে মোট রফতানি লক্ষ্যমাত্রা অর্জন নিয়েও সংশয় রয়েছে। যদিও চলতি অর্থবছরের জন্য খুব হিসাবি লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। পরিসংখ্যান অনুযায়ী, রফতানি আয়ের চালিকাশক্তি গার্মেন্টস রফতানিতে গত আট মাসে গতি তেমনভাবে ফেরেনি। নিট, ওভেন, হোম টেক্সটাইল, স্পেশালাইজড টেক্সটাইল কোনটিতেই রফতানি লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়নি। এ উপখাতগুলো থেকেই রফতানির সিংহভাগ আসে। চলতি অর্থবছরের আট মাসে যেখানে মোট রফতানি হয়েছে দুই হাজার ৩১ কোটি ডলার সেখানে এ চার উপখাতেই রফতানি হয়েছে এক হাজার ৬৭১ কোটি ডলারের পণ্য। এরমধ্যে ওভেন পণ্য রফতানি থেকে আয় হয়েছে ৮২২ কোটি ৮৩ লাখ মার্কিন ডলার, নিটওয়্যার থেকে ৭৯১ কোটি দুই লাখ ডলার, হোম টেক্সটাইল থেকে ৫০ কোটি এবং স্পেশালাইজড টেক্সটাইল থেকে ৭ কোটি ৬৩ লাখ ডলার। পরিসংখ্যান বিশ্লেষণে দেখা গেছে, গত আট মাসে পোশাক খাতের পাশাপাশি অন্যান্য পণ্যেও লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় রফতানি কম হয়েছে। গত অর্থবছরের তুলনায় কৃষিজাত পণ্য, সিমেন্ট, পেট্রোলিয়াম প্রোডাক্ট, চামড়া, কাঠ ও কাঠজাত পণ্য, কাগজ ও কাগজজাত পণ্য, সিল্ক, তুলা ও তুলাজাত পণ্য প্রভৃতি থেকে রফতানি কমেছে।

সর্বশেষ সংবাদ