লক্ষ্মীপুরে হঠাৎ মেঘনার ভাঙনে দিশেহারা নদী তীরের বাসিন্দারা।

পোস্ট করা হয়েছে 29/09/2019-10:49am:    লক্ষ্মীপুরে হঠাৎ মেঘনার ভাঙনে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন নদী তীরের বাসিন্দারা। গত পনেরো দিনে কমলনগর ও রামগতি উপজেলার কয়েকটি এলাকায় ভাঙন ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। এসময়ে বিলীন হয়েছে শত বছরের বিভিন্ন স্থাপনা ছাড়াও তিন শতাধিক ঘরবাড়ি। স্থানীয়দের দাবি, গত ২০ বছরে এমন তীব্র ভাঙনে পড়েননি তারা। এতে প্রতিদন উৎকণ্ঠা নিয়ে দিন কাটছে নদী তীরের মানুষদের। মেঘনায় ভাঙনের এমন রূপ আগে দেখেনি কমলনগর উপজেলার চরফলকন, পাটওয়ারীহাট, সাহেবেরহাট, চরকালকিনি এলাকার মানুষ। প্রতিদিন চোখের সামনে বিলীন হচ্ছে ঘরবাড়ি-ফসলি জমি, ধর্মীয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন স্থাপনা। রামগতি উপজেলার আলেকজান্ডার আসলপাড়া, মেস্তুরীপাড়া ও বাংলাবাজারের ২০ কিলোমিটার এলাকাতেও চলছে ভাঙন। যা এতোটাই প্রকট যে, কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই নিঃস্ব হতে হচ্ছে পাড়ের বাসিন্দাদের। গত ১৫ দিনে এসব এলাকায় ঘরবাড়ি-ফসলি জমি হারিয়েছেন তিন শতাধিক পরিবার। ঝুঁকিতে রয়েছে দুই উপজেলার আরও ২ লাখের বেশি মানুষ। ভাঙন থেকে নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষায় প্রতিদিনই মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিলসহ নানা কর্মসূচি পালন করছেন স্থানীয়রা। তবে তা প্রতিরোধে নেই তেমন ব্যবস্থা। মেঘনার ভাঙন তীব্র হলেও ব্যবস্থা নিতে পারছে না পানি উন্নয়ন বোর্ড। কর্মকর্তাদের দাবি, সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকার প্রকল্প মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। অনুমোদন পেলে শুরু হবে কাজ। ভাঙন ঠেকাতে সরকারকে জরুরিভাবে প্রতিরোধ ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছে মেঘনা তীরের বাসিন্দারা।

সর্বশেষ সংবাদ