কোরবানীর বর্জ্য অপসারণে চসিক’র নজিরবিহীন সাফল্য

পোস্ট করা হয়েছে 27/09/2015-01:19pm:    চট্টগ্রাম অফিসঃ
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন পবিত্র ঈদুল আযহার কোরবানীর পশুর বর্জ্য, নাড়ি-ভুঁড়ি অপসারণে নজিরবিহীন সাফল্য অর্জন করেছে। ২৫ সেপ্টেম্ব্র ২০১৫খ্রি. পবিত্র ঈদের দিন সন্ধ্যার মধ্যে নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডের পুরো এলাকা পরিষ্কার করে এ নজির স্থাপন করেছে। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন সকাল থেকে ওয়ার্ড ওয়ারী আবর্জনা অপসারণে গাড়ী ব্যবস্থাপনা, সেবকদের উপস্থিতি, তত্ত্বাবধায়ক, পরিদর্শন, সুপারভাইজার ও দলপতিদের উপস্থিতিসহ সার্বিক কার্যক্রম মনিটরিং করেন। দুপুরে মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে এবং নগরীর হালিশহর ও কালুরঘাট আবর্জনাগারে কোরবানীর পশুর বর্জ্য, নাড়ি-ভুঁড়ি ডাম্পিং কার্যক্রমও সরেজমিনে দেখতে যান। তিনি জামালখান, বাগমনিরাম, শুলকবহর ওয়ার্ডে আবর্জনা সংগ্রহ কার্যক্রমও পরিদর্শন করেন। সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বিকেল ২ টা থেকে সন্ধ্যা ৭ টা পর্যন্ত নগরীর বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম সরাসরি মনিটরিং করেন। এ সময় মেয়রের সাথে মেয়রের একান্ত সচিব মোহাম্মদ মঞ্জুরুল ইসলাম, প্যানেল মেয়র-৩ নিছার উদ্দিন আহমেদ, কাউন্সিলর মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, হাসান মুরাদ বিল্পব, বর্জ্য ষ্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান শৈবাল দাশ সুমন, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ সফিকুল মন্নান সিদ্দিকী, জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবদুর রহিম, পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদুল আলম, পুল কর্মকর্তা মির্জা ফজলুল কাদের, সহকারী প্রকৌশলী যান্ত্রিক সুদীপ বসাক সহ কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। এবারের ঈদুল আযহায় নগরীর হালিশহর আবর্জনাগারে ১৯টি ওয়ার্ডের এবং এফ আই ডি সি রোডস্থআবর্জনাগারে ২২টি ওয়ার্ডের বর্জ্য ডাম্পিং করা হয়। বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান শৈবাল দাশ সুমন এর তত্ত্বাবধানে ৪১ টি ওয়ার্ডকে ৪টি জোনে বিভক্ত করা হয়। উত্তর জোনের মোট ১০ টি ওয়ার্ডের চেয়ারম্যানের দায়িত্বে ছিলেন কাউন্সিলর মোহাম্মদ মোবারক আলী, দক্ষিণ জোনের মোট ১১টি ওয়ার্ডের চেয়ারম্যানের দায়িত্বে ছিলেন কাউন্সিলর মোহাম্মদ জাবেদ, পূর্ব জোনের ১১টি ওয়ার্ডের চেয়ারম্যানের দায়িত্বে ছিলেন কাউন্সিলর হাজী নুরুল হক, পশ্চিম জোনের ০৯টি ওয়ার্ডের চেয়ারম্যানের দায়িত্বে ছিলেন কাউন্সিলর জেসমিনা খানম। বর্জ্য অপসারণে প্রায় ২ হাজার ৫ শত সেবক এবং ১৩৫ টি গাড়ী, ১৯টি টমটম, কাজে লাগানো হয়। দামপাড়াস্থ কন্ট্রোল রুম থেকে সার্বক্ষণিক মনিটরিং করা হয়। ৪১টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর, সংরক্ষিত ওয়ার্ডের মহিলা কাউন্সিলর, ৪টি জোন চেয়ারম্যান সার্বক্ষণিকভাবে বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম তদারকি ও মনিটরিং করেন। এ ছাড়াও নগরীর বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক সংগঠন নগরীর বর্জ্য অপসারণে সহযোগিতা করেন। এদিকে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন এক বিবৃতিতে কোরবানী পশুর বর্জ্য অপসারণ কাজে সিটি কর্পোরেশনকে সার্বিকভাবে সহযোগিতা করায় সর্বস্তরের নগরবাসী, রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন, প্রিণ্ট ও ইলেক্ট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিক, কাউন্সিলর, মহিলা কাউন্সিলর, কর্মকর্তা-কর্মচারী, সেবক, গাড়ীর চালক, বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তা ও কর্মচারী সকলকে ধন্যবাদ জানান। বিশেষ করে বর্জ্য অপসারণে করণীয়-বর্জনীয় বিষয়াদি প্রচারে মসজিদের ইমাম, পত্র-পত্রিকা, বেতার ও টিভি চ্যানেল সহ বিভিন্ন প্রচার মাধ্যমের সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান। সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন পরিচ্ছন্ন কাজে সফলতার জন্য সংশ্লিষ্ট কয়েকটি ওয়ার্ডকে পুরস্কার প্রদানের ঘোষণা দিয়েছেন।

সর্বশেষ সংবাদ
ক্ষতিগ্রস্ত ‘উদয়ন এক্সপ্রেস’ ট্রেনের ৬টি বগি চট্টগ্রাম রেলস্টেশনে চন্দনাইশে পেঁয়াজ ভর্তি ট্রাক উল্টে ডোবায় ট্রেনচালকদের উন্নত প্রশিক্ষণ প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী শিগগিরই পেঁয়াজের মূল্য ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে আসবে: শিল্পমন্ত্রী কৃষিনির্ভর না থেকে শিল্পায়নের পথে যান: প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রাম-৮ আসনে আসন্ন নির্বাচনে মোছলেম উদ্দিনের দোয়া কামনা নগরীতে যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে দুই গ্রুপের মারামারি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ট্রেন দূঘটনায় তিনটি তদন্ত কমিটি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ট্রেন দূঘটনায় তিনটি তদন্ত কমিটি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মন্দভাগ যাত্রীবাহী দুই ট্রেনের মধ্যে ভয়াবহ সংঘর্ষে ১৭ জন নিহত