চ.সি.ক রাজস্ব শাখার কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সাথে সিটি মেয়র

পোস্ট করা হয়েছে 03/08/2015-10:07am:   
চট্রগ্রাম অফিসঃ
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ. জ. ম নাছির উদ্দীন আজ ০২ আগষ্ট ২০১৫ খ্রি. রবিবার সকালে থিয়েটার ইনস্টিটিউট হল রুমে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের রাজস্ব শাখার কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সাথে মতবিনিময় করেন । এতে সভাপতিত¦ করেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মোহাম্মদ শফিউল আলম। সভায় মেয়রের একান্ত সচিব মোহাম্মদ মনজুরুল ইসলাম, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আহমদুল হক,রাজস্ব কর্মকর্তা সামসুল আলম সহ-সহকারী এষ্টেট অফিসার,টিও,ডি টি ও,এবং কর আদায়কারীগণ মত বিনিময় সভায় অংশ নেন।সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন ২০১৪-২০১৫ অর্থ সনের কর আদায় সহ হালনাগাদ কর আদায়ের বিষয়গুলো ওয়ার্ড ওয়ারি খতিয়ে দেখেন এবং সংশ্লিষ্টদের নিকট একে একে তুলে ধরে তাদের মতামত নেন।মেয়র বকেয়া সহ হোল্ডিং ট্যাক্স হালনাগাদ আদায়ে আরো আন্তরিক হওয়ার নির্দেশ দেন।তিনি বলেন,কর্মকর্তা কর্মচারীদের বেতন ভাতা ও আনুসঙ্গিক খরচাদি রাজস্ব থেকে নির্বাহ করা হয়।সুতরাং শতভাগ রাজস্ব আদায়ের ক্ষেত্রে কোন ধরনের ছাড় পাওয়ার কোন সুযোগ নেই।সম্মানিত নাগরিকদের ঘরে ঘরে গিয়ে সর্বোচ্চ সম্মান ও মর্যাদার সাথে সুমধুর ব্যবহার, সুন্দর আচরন দিয়ে কর আদায় করে নিয়ে আসতে হবে।কোন নাগরিকের সাথে কটুক্তি, অশোভন আচরণ করা যাবেনা।মেয়র বলেন, যারা যারা ভাল পারফরমেন্স করবে তাদেরকে পুরস্কৃত করা হবে আর যারা যারা সার্বিকভাবে দায়িত্ব পালন করবেনা বা কর আদায় সন্তোষজনক হবেনা তাদেরকে শাস্তির আওতায় আনা হবে।তিনি বলেন,কর্মকর্তা কর্মচারী স্থায়ীÑ অস্থায়ী সকলেই স্বÑস্ব মর্যাদা ও সম্মান,বেতন ভাতা,সুযোগÑসুবিধা শতভাগ পাবেন তবে কর্মক্ষেত্রেও শতভাগ সততা আন্তরিকতা দেখাতে হবে। তিনি জাতীয় বেতন স্কেলের সাথে সাথে অস্থায়ীদের বেতন ভাতা বৃদ্ধির ঘোষণা দেন।মেয়র বলেন, আমি বার বার বলেছি প্রশাসনিক শৃংখলা বজায় রাখতে হবে। চেইন অব কমান্ড মেনে চলতে হবে। চাকুরীর ক্ষেত্রে রাজনৈতিক ভাবে দলীয় পরিচয়, ধর্ম-বর্ণ, গোত্র ও সম্প্রদায় কোন বিবেচ্য বিষয় হবে না। কর্মক্ষেত্রে যার যার দায়িত্ব ও কর্তব্য শতভাগ স্বচ্ছতা, নিষ্টা ও জবাবদিহীতার ভিত্তিতে পালন করতে হবে। তিনি বলেন, মেয়র, কাউন্সিলর, কর্মকর্তা ও কর্মচারী নিয়ে একটি পরিবার। এ পরিবারের সদস্য হিসেবে নিজ নিজ দায়িত্ব ও কর্তব্য বিধি বিধানের আওতায় সম্পাদন করে কর্পোরেশনের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করতে হবে। মেয়র বলেন, হোল্ডিং ট্যাক্স আদায়ের ক্ষেত্রে কোন ধরনের জটিলতা ও প্রতিবন্ধকতা দেখা গেলে সেখানে আইনের প্রয়োগ করতে হবে। মেয়র বলেন, সরকারী প্রতিষ্ঠান সমূহের ট্যাক্স আদায়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতা নেয়া হবে। বেসরকারী ট্যাক্স যথানিয়মে আদায় করতে হবে। সহজ ও সরল নিয়মে বৈধ পন্থায় নিয়ম নীতির আলোকে নতুন নতুন হোল্ডারদের উপর কর আরোপিত হবে। ভয়-ভীতি, হুমকি ধুমকী, অনিয়ম, গোজামিল দিয়ে করা আরোপের দিন শেষ হয়ে গেছে। মেয়র বলেন, প্রতিনিয়ত দালান কোটা, ঘর-বাড়ী, ব্যবসা-বাণিজ্য, দোকানপাট বৃদ্ধি পাচ্ছে। নতুন নতুন স্থাপনার জন্য হোল্ডিং ট্যাক্স ধার্য করার ক্ষেত্রে নতুন নিয়ম চালু করা হবে। এসেসমেন্ট পদ্ধতি সহজ করে নাগরিকদের দোড়গোড়ায় সেবা পৌছে দিতে হবে যাতে কোন নাগরিক হয়রানির শিকার না হন। তিনি বলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনকে নিজ পায়ে দাড়াতে হবে। ট্যাক্স আদায় গতিশীল করা ছাড়াও আয় বর্ধক প্রকল্পগুলোকে সচল করতে হবে। অপ্রয়োজনীয় ব্যয় কমাতে হবে। তিনি বলেন, অতীতের সব সমস্যা সমাধান করে সিটি কর্র্পোরেশনকে আদর্শ কর্পোরেশনে উন্নতি করা হবে। মেয়র বলেন, ২০১৪-২০১৫ খ্রি. আর্থিক সনের তথ্যমতে প্রায় ২শত ১৫ লক্ষ টাকার পৌরকর বকেয়া আছে। তন্মধ্যে বেসরকারী অনাদায়ী কর প্রায় ৬৩ কোটি টাকা।

সর্বশেষ সংবাদ
ক্ষতিগ্রস্ত ‘উদয়ন এক্সপ্রেস’ ট্রেনের ৬টি বগি চট্টগ্রাম রেলস্টেশনে চন্দনাইশে পেঁয়াজ ভর্তি ট্রাক উল্টে ডোবায় ট্রেনচালকদের উন্নত প্রশিক্ষণ প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী শিগগিরই পেঁয়াজের মূল্য ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে আসবে: শিল্পমন্ত্রী কৃষিনির্ভর না থেকে শিল্পায়নের পথে যান: প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রাম-৮ আসনে আসন্ন নির্বাচনে মোছলেম উদ্দিনের দোয়া কামনা নগরীতে যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে দুই গ্রুপের মারামারি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ট্রেন দূঘটনায় তিনটি তদন্ত কমিটি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ট্রেন দূঘটনায় তিনটি তদন্ত কমিটি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মন্দভাগ যাত্রীবাহী দুই ট্রেনের মধ্যে ভয়াবহ সংঘর্ষে ১৭ জন নিহত