গ্রাম বাংলার ঈদ স্নেহময় এক বন্ধন। ঈদ মোবারক।

পোস্ট করা হয়েছে 17/07/2015-08:52pm:   
রাকিবুল ইসলামঃ
ঈদ মানে আনন্দ। ঈদ মানে উৎসব। ঈদ মানে সাম্য। ঈদ মানে উৎসের কাছে ফিরে যাওয়া। ঈদ মানে নিজেকে বিলিয়ে দেওয়া। ক্ষুদ্রতার ঊর্ধ্বে ওঠার চেষ্টা। বৃহতের সঙ্গে যুক্ত হওয়া। ঈদ মানে সবাই মিলে সুন্দর থাকা। ঈদ মানে খুশি। ঈদ মানে নতুন কাপড় আর দু-এক রকম মিষ্টি।
এমনই ছোট ছোট সুখ নিয়ে বাংলার গ্রামগুলোতে ঈদ আসে।শহুরে জিবনের বিলাসিতা,অভিজাত মল থেকে কেনাকাটা, ফাস্টফুড আর ফাইবস্টার এর নানা স্বাদের খাবারের ভিড়ে আমরা বোধ হয় সাদামাটা জিবন, হাটের দোকানের জামা, মিষ্টি আর কাগজের ফুল দিয়ে সাজানো ঈদগাহ এর কথা ভুলেই গেছি।
এই প্রজন্মের অনেকে তো জানেই না যে বাংলাদেশের কোথাও এমন ঈদ ও হয়। যে মহাসড়ক দিয়ে আমরা ঈদের ছুটি কাটাতে কক্সবাজার আর চিটাগাং বিচে যাই।সেই মহাসড়কের গা ঘেসে রয়েছে অনেক ছোট ছোট গ্রাম।সেখানে এখনো হাট বসে।সারা রমজান জুড়ে ইফতার আর গ্রাম্য মিষ্টির দোকান বসে।
নতুন এক জোড়া কাপড়ের জন্য অপেক্ষমান শিশুরা রাস্তার ধারে বসা হাটের দোকান গুলোতে বাবা-মার সাথে কাপড় কিনতে আসে। এখানে বাচ্চাদের বড়দের জামা-জুতা, লুঙ্গি, টুপি,শাড়ি আর খাবারের ক্ষণস্থায়ি দোকান বসে। হাট শেষ হওয়ার পর এই দোকান গুলোকে খুজে পেতে আবার আরেক হাটের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।
এসব গ্রামে সাধারণত সাপ্তাহিক হাট বসে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস গুলোর পশরা নিয়ে। শহুরে মানুষদের কাছে এমন জিবন আর ঈদ কে খুব সাদামাটা মনে হলেও এখানকার ঈদ আনন্দ কিন্তু মোটেও কম না।শহরে যেখানে আমরা পার্ক আর রেষ্টুরেন্টে আনন্দ কিনতে যাই সেখানে এরা প্রকৃতির কোলে, নদীর পাড়ে, গাছের ডালে সৃষ্টির অপার সৌন্দোর্যে আত্বীয়, পরিবার আর ব্ন্ধুদের সাথে প্রতিটি ঈদ কে করে তোলে স্বরণীয়। পরিবারের প্রতিটি নবীন প্রবীন সদস্যদের সাথে গড়ে তোলে অটুট স্নেহময় এক বন্ধন।
এখানে কোন কিছুই বানোয়াট না। সুখ খুজতে এদের সমুদ্র তীড় বা বিদেশ যেতে হয় না। এরা একে অপরের সাথেই খুজে পায় স্বরগীয় সুখ।
আলোর কণ্ঠ সব পাঠকের জন্য এই আমাদের ঈদ উপহার। আপনাদের সবার ঈদ সুন্দর হোক, আনন্দময় হোক, নিরাপদ হোক। যে যেখানে আছেন, ভালো থাকুন।
ঈদ মোবারক।

সর্বশেষ সংবাদ